চীনের সাথে অচলাবস্থার অবসান চায় ভারত

পূর্ব লাদাখ এলাকায় চীনের সাথে চলমান অচলাবস্থার অবসান চায় ভারত, কিন্তু ভারতীয় সেনারা দেশের এক ইঞ্চি জায়গাও ছেড়ে দেবে না। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং রবিবার পশ্চিম বঙ্গে সেনাবাহিনীর ৩৩ কর্পসের সদর দপ্তর সুকনাতে ‘শাস্ত্র পূজা’ পালন শেষে এ মন্তব্য করেন।

রাজনাথ সিং বলেন, “ভারত চায় সীমান্তে চীনের সাথে চলমান উত্তেজনার অবসান হোক এবং শান্তি ফিরে আসুক। এটাই আমাদের লক্ষ্য। কিন্তু মাঝে মাঝেই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে চলেছে। আমি আত্মবিশ্বাসী যে আমাদের সেনারা কখনও দেশের এক ইঞ্চি জায়গাকেও অন্যদের নিয়ে যেতে দেবে না”।

তিনি বলেন, “লাদাখে ভারত-চীন সীমান্তে সম্প্রতি যেটা ঘটেছে, সে ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে আমি আত্মবিশ্বাসের সাথে বলতে চাই যে সেখানে তাদের ভূমিকা ইতিহাসে সোনার হরফে লেখা থাকবে”।

এই সফরে রাজনাথের সাথে ছিলেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল মনোজ নারাভানে এবং পূজার পর তিনি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সিকিমে একটি সড়কের উদ্বোধন করেন। বর্ডার রোডস অর্গানাইজেশান (বিআরও) এই সড়কটি নির্মাণ করেছে।

লাদাখে মে মাসে বিতর্কিত সীমান্তে অচলাবস্থার সময় থেকে পুরো এলএসি এলাকাতেই সেনাবাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্কতায় রাখা হয়েছে। ১৫ জুন, গালওয়ান উপত্যকায় এক ভয়াবহ সঙ্ঘর্ষে ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হয় এবং চীনের অজানা সংখ্যক সেনা সেখানে হতাহত হয়। সরকারের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে, কূটনৈতিক চ্যানেলে চীন স্বীকার করেছে যে, তাদের পাঁচ সেনা নিহত হয়েছে, যাদের মধ্যে একজন কমান্ডিং অফিসারও রয়েছেন।

২৯ ও ৩০ আগস্ট পাংগোং সো লেকের দক্ষিণ দিকে ভারতীয় সেনাবাহিনী কিছু জায়গা দখল করলে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা আবার উসকে ওঠে। সেনা প্রত্যাহার এবং তৎপরতা কমিয়ে আনার জন্য দুই দেশের সামরিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে বেশ কয়েক দফা আলোচনার পরও দুই পক্ষ সুনির্দিষ্ট কোন সমাধানে পৌঁছাতে পারেনি।

এর আগে সিকিমের লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের (এলএসি) কাছে অনেক উঁচু শেরাথাং এলাকায় পূজা উদযাপনের কথা ছিল রাজনাথ-এর। কিন্তু প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে সেই কর্মসূচি বাতিল করা হয় বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

সূত্র: দ্য হিন্দু চীনের সাথে অচলাবস্থার অবসান চায় ভারত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *